বাচ্চাদের সর্দি হলে কি খাওয়া উচিত - জেনে নিন ঘরোয়া পদ্ধতি

সুপ্রিয় পাঠকবৃন্দ,  আমাদের ওয়েবসাইটের স্বাস্থ্য রিলেটেড বাচ্চাদের সর্দি হলে কি খাওয়া উচিত, বাচ্চাদের সর্দি কাঁশির সিরাপ, শিশুদের সর্দি কাশির হোমিও ঔষধ,, ইত্যাদি নিয়ে আলোচিত উক্ত পোস্টে আমাদেরকে স্বাগতম। 

আমাদের উক্ত পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে সর্দি হলে বাচ্চাদের যে সকল খাবার খাওয়া উচিত এবং যে খাবারগুলো খাওয়ানো উচিত নয় ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনার মাধ্যমে জানাচ্ছি। 

বিভিন্ন সময়ে ঋতু পরিবর্তন এবং আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে মৌসুমী বায়ুতে শিশুদের সর্দি হয়। সেজন্য বাচ্চাদের সর্দি-কাশি হলে যে সকল খাবার খাওয়ানো উচিত,  করণীয়, বাচ্চাদের সর্দি কাশির সিরাপ, হোমিও ঔষধ সম্পর্কে বিস্তারিত জানার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। সর্দি কাশি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে বাচ্চাদের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করা যায়। 

বাচ্চাদের সর্দি হলে কি খাওয়া উচিত

বাচ্চাদের সর্দি হলে তাদের জন্য  সর্বশ্রেষ্ঠ খাবার হল ঘরোয়া তৈরি খাবার। এছাড়াও খাদ্য তালিকায় কালোজিরা কিংবা সরিষা রাখতে পারেন।  সর্দির উপশমের জন্য সরিষার তেল,  সরিষা ভর্তা, সরিষা শাক ইত্যাদি উপকারী। সর্দি দূর করার অন্যতম একটি উপাদান হলো তুলসী পাতা।  

বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন সি এবং এন্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ফল রয়েছে যেগুলো রোগ প্রতিরোধের জন্য খুবই উপকারী। 

খাদ্য তালিকায় বিভিন্ন টক জাতীয় খাবার, পেয়ারা, মাল্টা, কমলা ইত্যাদি রাখতে পারেন। বড়দের ক্ষেত্রে তুলসী পাতা বা চা  সালাতের সঙ্গে মিশিয়ে খেতে পারেন। 

মৌসুমী যে সকল সবজি পাওয়া যায় সেগুলো দিয়ে স্যুপ তৈরি করে খাওয়াতে হবে।  এছাড়াও রয়েছে রসুন, আদা,  মুরগির মাংস, ডিম মিশিয়ে রান্না করে খেলে তা উপকারী। বাচ্চাদের সর্দি থাকলে পুদিনা পাতা, কুসুম গরম পানির সাথে লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে খাওয়ানো যায়।

বাচ্চাদের সর্দি হলে কি খাওয়া উচিত না

সাধারণত শিশুরা অল্পতেই সর্দিতে আক্রান্ত হয়।  শীতকালে তুলনামূলক বেশি সর্দিতে আক্রান্ত হয়ে থাকে।  তবে শিশুদের সর্দি হলে এমন কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো খাওয়ানো উচিত নয়।  বাচ্চাদের সর্দি হলে যে সকল খাবার খাওয়ানো উচিত নয়,,  তা নিয়ে আলোচনা করা হলো :- 

গরুর দুধ:-

সর্দি কাশি হলে শিশুদের কে গরুর দুধ খাওয়াবেন না।  এর পরিবর্তে বিভিন্ন পনির, সোয়া মিল্ক,  চিজ ইত্যাদি খাবার খাওয়াতে পারেন।  

বাচ্চাদের সর্দি-কাশি হলে টক জাতীয় কোন ফল খাওয়ানো ঠিক নয়।  এজন্য কমলা লেবু, ডাব, তরমুজ, লিচু, কলা, আঙ্গুর ইত্যাদি খাবার সময় এড়িয়ে চলবেন। 

সর্দিতে আক্রান্ত হলে শিশুদের কে কুমড়া,  করলা, উচ্ছে, শসা, লাউ ইত্যাদি খাওয়াবেন না। 

দই খেলে শরীর ঠান্ডা থাকে।  এজন্য শিশুদের সর্দি কাশি হলে বা ফুসফুসে সংক্রমণ হলে দই খাওয়ানো উচিত নয়। 

সর্দিতে আক্রান্ত হলে শিশুকে বেশি বেশি করে চিনি খাওয়ানো ভালো নয়।  ঠান্ডা লাগে সেক্ষেত্রে মিষ্টি খাবার এমনকি চিনি খাওয়াবেন না।  

বাচ্চাদের সর্দি হলে কি খাওয়া উচিত

ছোট বাচ্চাদের সর্দি হলে করণীয় 

ছোট বাচ্চাদের সর্দি হলে, যে সকল কাজগুলো করণীয় সেগুলো হলো:-

১. শিশুর বসবাসের স্থানকে আবহাওয়া অনুযায়ী উষ্ণ রাখার চেষ্টা করুন। 

২. শিশুকে বারবার বুকের দুধ খাওয়াবেন। 

৩. শিশুদেরকে ঘন ঘন স্বাভাবিক যে সকল খাবার রয়েছে সেগুলো অর্থাৎ তরল খাবার গুলো খাওয়াবেন।

৪. তুলসী পাতা,  লেবুর রস এবং গরম পানি একত্রে মিশিয়ে  রস খাওয়াতে পারেন।  এক্ষেত্রে বাচ্চার সর্দির পাশাপাশি কাশিও দূর হবে। 

৫. সর্দিতে যদি শিশুদের নাক বন্ধ থাকে তাহলে পরিষ্কার পাতলা কাপড় দিয়ে তাদের নাক পরিষ্কার করতে হবে।

৬. শিশুদেরকে বিশ্রামের ব্যবস্থা করে দিন। 

৭. হালকা গরম এমন পানি দিয়ে শরীরে স্পন্স করান। 

৮. এক বছরের বেশি বয়সী  শিশুদেরকে ফলের সুপ খাওয়ান। 

৯. যাদের বয়স দুই বছরের বেশি তাদেরকে কমলালেবুর রস পান করান।

এছাড়াও,,,  

শিশুদেরকে আধা কাপ পরিমাণ কুসুম গরম পানিতে চার ভাগের  এক ভাগ পরিমাণ লবণ মিশিয়ে স্যালাইন ড্রপ তৈরি করতে হবে। 

একটি কাপড় রোল করে অথবা তোয়ালে  দিয়ে শিশুর মাথার নিচে  দিয়ে তাকে শুয়ান।  অতঃপর ৩০ থেকে ৪০ মিনিট পর পর আপনি দুই ফোঁটা বা তিন ফোঁটা পরিমাণ ড্রপ দিয়ে শিশুর নাক পরিষ্কার করুন।  

দুই বছর বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে ড্রপ ব্যবহার করা নিষেধ।  এজন্য তাদেরকে ডিকনজেসটেন্ট ড্রপ ব্যবহার করলে নাকের ভেতরের যে শিরা গুলো রয়েছে সেগুলো সংকুচিত হবে।  ফলে,  এটি নাক দিয়ে পানি পড়া রোধ করবে না।  এজন্য দুই বছর বয়সী শিশুদেরকে  ডিকনজেসটেন্ট ড্রপ ব্যবহার করবেন না। 

এছাড়াও শিশুদের তিন দিনের বেশি সর্দি থাকলে আপনি ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন। 

 বাচ্চাদের সর্দি কাঁশির সিরাপ 

বাচ্চাদের সর্দি-কাশির বিভিন্ন সিরাপ রয়েছে।  বাচ্চাদের সর্দি-কাশি নিরাময়ের জন্য যে সকল সিরাপ  রয়েছে সেগুলোর নাম নিম্নে  তুলে ধরা হলো :-

→Adovas,,,

→Ambrox,,,

→Tofen,,,

→মিরাকফ,,,

→Mucusol,,,

→Hamdard cough syrup,,,

→ফেক্সো,,,

→Adovas,, ( এডোভাস),,,

→Dok-1 MAX,,,

→ডেক্স পোটেন,,,

→Saduri,,,

→Ocof,,,

→Histacin,,,

→টমিফেন,,,

→মিউকোলিট,,,

→সুডোকফ,,,

→ketomar,,,

→প্রোজমা,,,

→Nof Nil,,,

→Tuspel,,,

→Remocof,,,

→mama natura,,,

 ইত্যাদি। 

শিশুদের সর্দি কাশির হোমিও ঔষধ

শিশুদের সর্দি কাশি নিরাময়ের জন্য বিভিন্ন ধরনের হোমিও ঔষধ রয়েছে।  শিশুদের সর্দি কাশির এমন কিছু হোমিও ঔষধের নাম হলো :- 

1) Basak- Q,,, 

2) Mama natura anykind,,,

3) Cinalmix,,,

4) Bed wetting kit,,,

5) Tonsil  Aid,,,

6) Helminth,,,

7) Essentia Infantia,,, 

8) শোয়াবে মামা ন্যাচুরা কিট,,,

9) Biocombination 3 (BC- 3),,,

10) Kof Aid,,,

11) 105 wormss,,,

12) Memorine,,, ইত্যাদি সহ আরো বিভিন্ন ঔষধ রয়েছে। 

শেষ কথা :- উক্ত পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে শিশুদের সর্দি হলে যে সকল খাবার খাওয়ানো উচিত এবং যে সকল খাবার উচিত নয়,  করনীয়, সর্দির সিরাপ, সর্দির হোমিও ঔষধ,,  ইত্যাদি সম্পর্কিত  বিভিন্ন তথ্য আলোচনার মাধ্যমে জানিয়েছি। 

আশা করি ,, আমাদের পোস্টটি  পড়ার মাধ্যমে শিশুদের সর্দি হলে যে সকল কাজ করণীয় সে সম্পর্কে যথাযথভাবে জানার মাধ্যমে আপনারা উপকৃত হতে পেরেছেন। 

Unique Code wait
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url